1. protinews24@gmail.com : protinews.com : Bamgakobi Zahed
বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম

যেভাবে রক্ষা পেল দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকায

  • প্রকাশিত: সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৫

তথ্যসূত্রঃ সবার ইনসাফ
শায়খুল হাদিস যাকারিয়া রহ. তাঁর আত্মজীবনী আপবিতির মাঝে পুরো ইতিহাস তুলে ধরেছেন। সেখান থেকে সংক্ষেপে আলোচনা করছি।
দেশভাগের সময় লোকেরা বারবার মারকাযের প্রধান আমির হযরতজি মাওলানা ইউসুফ রহ.কে হিজরতের জন্য পীড়াপীড়ি করতে থাকে। কেউ কেউ তো বিমানের ২৫-৩০টি টিকেট হাতে দিয়ে বলে যে, পরিবার-পরিজন নিয়ে পাকিস্তান চলুন।
তাঁদের পরামর্শ ছিল, ভারতের অধিকাংশ মুসলমান বর্তমানে পাকিস্তান চলে গেছেন। কাজেই দ্বীনি দাওয়াত ও ইসলাহের কাজ শক্তিশালীভাবে করতে হলে আপনার সেখানে চলে যাওয়া জরুরি। তাছাড়া উত্তরপ্রদেশ ও দিল্লিতে যেহারে মুসলমানদের উচ্ছেদ করা হচ্ছে তাতে ভবিষ্যতে এখানে দ্বীনি কাজ করার উপযুক্ত পরিবেশ আশা করা অসম্ভব।
তাদের পীড়াপীড়ির জবাবে হযরতজি মাওলানা ইউসুফের একটি কথাই বলতেন, ‘যদি ভাই সাহেব (হযরত মাওলানা যাকারিয়্যা রহ.) হিজরত করে যান তাহলে আমিও যাবো, নয়তো যাবো না।’

হযরত শায়খুল হাদিস মাওলানা যাকারিয়্যা রহ. নিজে কেন পাকিস্তান হিজরত করেননি, সেই কারণ তুলে ধরে বলেন, ‘আমরা হিজরতের ব্যাপারে হযরত মাদানি রহ. এর সঙ্গে পরামর্শ করলাম। হযরত মাদানি আমাদের বক্তব্য শুনে একটি ঠাণ্ডা নিশ্বাস ছাড়লেন। তাঁর চোখে তখন অশ্রু। দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে তিনি বললেন,
“আমাদের পরিকল্পনা সফল হতে পারেনি। যদি আমাদের পরিকল্পনা মেনে নেয়া হতো তাহলে এতো রক্তারক্তি যেমন হতো না, তেমনই আবাসস্থল বিনিময়ের প্রয়োজনও দেখা দিতো না।
এখন আমি কাউকে চলে যেতে বারণ করি না। যদিও মদিনা শরিফে আমার থাকার জায়গা রয়েছে। আমার ভাই সাইয়্যিদ মাহমুদ আমাকে মদিনায় চলে যেতে বারবার পীড়াপীড়ি করছেন; কিন্তু আমি ভারতীয় মুসলমানদেরকে নিঃস্বতা, অসহায়ত্ব, ত্রাস ও প্রাণভয়ের এই পরিস্থিতির উপর ফেলে রেখে অন্যত্র কোথাও যাবো না।
কাজেই যে ব্যক্তি নিজের জীবন-সম্পদ, ইজ্জত-সম্মান ও দ্বীন-দুনিয়া এখানকার মুসলমানের জন্য উৎসর্গ করতে সম্মত, সে-ই এখানে থাকবে। আর যার পক্ষে এহেন ত্যাগ-তিতিক্ষা বরণ করা সম্ভব নয় তার চলে যাওয়াই উচিত।”
হযরত মাদানির বক্তব্য শুনে আমি দ্রুত বলে উঠলাম, “হযরত, আমি আপনার সাথে আছি।”
তখন হযরত আবদুল কাদির রায়পুরি রহ.ও বললেন, “তোমাদের দু’জন ব্যতিরেকে আমার পক্ষেও যাওয়া অসম্ভব।”
.
হযরত মাদানি রহ. এর পরামর্শে শায়খুল হাদিস যাকারিয়া রহ. পাকিস্তান হিজরতের সিদ্ধান্ত নেননি, বিধায় হযরতজি মাওলানা ইউসুফেরও যাওয়া হয়নি। ফলে তাবলিগের মারকায কেন্দ্র করে অসংখ্য মুসলমান ভারতে রয়ে যায়।
সেদিন যদি হযরত শায়খ মাদানি রহ. ভিন্ন সিদ্ধান্ত নিতেন তাহলে আজ হয়তো ভারত থেকে মুছে যেত সত্যিকার মুসলমান তৈরির এই নবিওয়ালা মেহনত। হয়তো হারিয়ে যেতো খোদ মুসলমানদেরই অস্তিত্ব, যেমনটি ঘটেছে স্পেনের গ্রানাডা-কর্ডোভায়।
শায়খুল ইসলাম মাদানি রহ.এর এই এক সিদ্ধান্ত ভারতে মুসলমানদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার শক্তিশালী বুনিয়াদ রচনা করে দিয়েছিল।
আব্দুল্লাহ আল ফারুক এর ওয়াল থেকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© বঙ্গকবি মিডিয়া লিমিটেড